কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী পৌরসভা নির্বাচনে প্রতিক বরাদ্দের প্রথম দিনেই ক্ষমতাসীন আ.লীগ ও জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মনোনীত প্রার্থী দুই পক্ষের সমর্থকদের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।
সোমবার(১১ জানুয়ারি) দুপুরে কটিয়াদী বাসস্ট্যন্ড এলাকায় এই ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।
পুলিশ সূত্র জানায়, সোমবার দুপুরে বিএনপির সমর্থকরা তাদের নেতা তোফাজ্জল হোসেন খান দিলীপকে নিয়ে বাসস্ট্যান্ড এলাকার পেট্রোল পাম্পে জড়ো হয় এবং জনসংযোগের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এসময় ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ ও জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি সমথর্কদের দুই পক্ষের মাঝে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার সৃষ্টি হলে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।
এদিকে দু-পক্ষের মনোনীত প্রার্থীই একে অপরের উপর পাল্টাপাল্টি অভিযোগ তোলেন।
আ.লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী শওকত উসমান অভিযোগ করে বলেন, নৌকা প্রতিক নিয়ে আসার সময় জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সমর্থকরা আমাদের ওপর হামলা চালায়। এসময় আমাদের কয়েকজন নেতাকর্মী আহত হয়। আমি নির্বাচন কমিশনের কাছে বিচার দাবি করছি।
অপর দিকে বিএনপির দলীয় ধানের শীষের মনোনীত প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেন খান (দিলীপ) পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, প্রতিক পাওয়ার পর দলের সমর্থকরা আমাকে নিয়ে পেট্রোল পাম্পে জড়ো হয়। পরে নৌকা প্রার্থী শওকত উসমানও বাসস্ট্যান্ডে আসেন। এমন সময় নৌকা প্রতিকের সমর্থকরা বৈঠা নিয়ে আমাদের উপর হামলায় চালায়। আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই  এবং প্রশাসনের কাছে সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানাচ্ছি।
কটিয়াদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এম এ জলিল জানান, ক্ষমতাসীন আ.লীগ ও বিএনপির সমর্থকদের মধ্যে তেমন কোন মারামারির ঘটনা ঘটেনি। নির্বাচন কেন্দ্র করে যাতে কোন ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটতে পারে তার জন্য আমাদের পুলিশ সবসময় তৎপর আছে বলে জানান তিনি।