মোঃ আলী সোহেল, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি : কিশোরগঞ্জের  কুলিয়ারচরে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।
শনিবার (১৩ আগস্ট) সকালে উপজেলার সালুয়া ইউনিয়নের বাজরা গ্রামের মালাকার পাড়ায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় উভয় পক্ষকের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে।
হিন্দু সম্প্রদায়ের মালাকার পাড়ার লোকজনের অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সীমানার খু্টি উঠানোকে কেন্দ্র করে বাজরা গ্রামের আসিফ মিয়ার পুত্র রাজীব (৩০) এর নেতৃত্বে মাহফিল (৪০) ও মিজান (১৮) সহ ১০/১৫ জন লোক বাজরা মালাকার পাড়ায় হামলা করে। হামলায় গর্ভবতী শিউলী রানী মালাকার (৩৫) সহ অরুন চন্দ্র মালাকার (৬০), সুকুমার চন্দ্র মালাকার (৭০), মায়া রাণী মালাকার (৭০), সন্ধ্যা রানী মালাকার (৮০), দীপ্তি রানী মালাকার (৩৫) ও সঞ্চিতা রানী মালাকার (১৫) আহত হয়।আহতদের মধ্যে অরুন চন্দ্র মালাকারকে কুলিয়ারচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করে। হামলায় গর্ভবতী শিউলী রানী মালাকার, সুকুমার চন্দ্র মালাকার, সন্ধ্যা রানী মালাকার, সঞ্চিতা রাণী মালাকার ও দীপ্তি রানী মালাকার কুলিয়ারচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নেন। অন্যরা স্থানীয় ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছে।
প্রতিপক্ষের ময়েজ মিয়ার স্ত্রী জোসনা বেগম জানান, তাদের সীমানার খুঁটি উঠানোর বিষয়টি জিজ্ঞাসা করতে গেলে হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজন রাজীব, মাহফিল ও মিজান মিয়ার উপর হামলা করলে তারাও হিন্দু সম্প্রদায়ের লোকজনের উপর হামলা করে। খবর পেয়ে ওই দিন দুপুরে কুলিয়ারচর থানার সাব-ইন্সপেক্টর আব্দুল্লাহ-আল-মামুন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
এঘটনায় হিন্দু সম্প্রদায়ের উদয় চন্দ্র মালাকার বাদী হয়ে কুলিয়ারচর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করে।
এব্যাপারে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইচার্জ মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ পাওয়ার  সত্যতা স্বীকার করে বলেন, তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।