মানুষের মৌলিক চাহিদার মধ্যে খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান তার পরেই রয়েছে চিকিৎসা, সুস্থ্য থাকার জন্য প্রত্যেক মানুষের জীবেনর চিকিৎসা অপরিহার্য , আর আমরা সাধারণ মানুষ সেখানেই সব চেয়ে বেশি অবহেলিত। সরকারি হাসপাতাল গুলোতে সাধারন মানুষ চিকিৎসা পায় না বললেই চলে। সরকারি হাসপাতাল গুলোতে সাধারন মানুষের আস্থা একে বারেই হারিয়ে যাচ্ছে, এর পিছনে কিছু কারণ রয়েছে?
দুর্নীতি হচ্ছে সবচেয়ে বড় একটা কারন, স্বাস্থ্য খাতে প্রতি বছর কোটি কোটি টাকা বাজেট হয়, সেই বাজেটের সিংহ ভাগই খেয়ে ফেলে আমলা -কামলা চুনুপুটি নেতা কর্মীরা, যার ফলে হাসপাতাল গুলোতে ভাল যন্ত্রাংশ কেনা হয় না, যদিও কেনা হয় তা খুবই নিম্ন-মানের যন্ত্রাংশ বা মেশিন হয়ে থাকে, যার ফলে কিছুদিন পরেই নষ্ট হয়ে যায়, তারপর আর সেগুলোর মেরামত হয় না, বিশেষ করে চিকিৎসকরা তাদের নিজস্ব/ ব্যক্তিগত চেম্বার নিয়ে ব্যস্ত থাকার কারনে হাসপাতাল গুলোতে তারা রোগী দেখেন না, আর দেখলেও তা খুবই কম। ব্যক্তিগত চেম্বারে মোটা অংকের বিনিময়ে রোগী দেখে মানুষের অর্থ লুটে পুটে খাচ্ছে কিছু ডাক্তার।
প্রাইভেট হাসপাতগুলোতে চিকিৎসা নিতে যাবেন, সেখানে রয়েছে বিশাল টাকার খেলা, আপনার টাকা আছে তো চিকিৎসা পাবেন। প্রাইভেট সেক্টরগুলোতেও বড়  হচ্ছে টেস্ট বানিজ্য, যেখানে  এক গাদা টেস্ট এর নাম লেখে দিবে, যে গুলো করতে অনেক টাকা চলে যায় । সরকারীতে তো এসব টেস্ট করতেই পারে না । আমাদের দেশে এসব দেখার কি কেউ নেই? একটি সুস্থ স্বাস্থ্যখাত কবে পাবে দেশবাসি? যাতে নিরাপদে চিকিৎসা নিতে পারে সাধারন মানুষ।