মোঃ আলী সোহেল, কিশোরগঞ্জ জেলা প্রতিনিধিঃ কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচর উপজেলার পশ্চিম গোবরিয়া গ্রামের মৃত মো. আবদুল হাই এর ছেলে কুলিয়ারচর উপজেলা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি, দৈনিক নয়া দিগন্ত পত্রিকার কুলিয়ারচর প্রতিনিধি এবং দৈনিক পূর্বকণ্ঠ ও সাপ্তাহিক দিনের গান পত্রিকার বার্তা সম্পাদক মুহাম্মদ কাইসার হামিদকে হয়রানি করার উদ্দেশ্যে তার নামে ঢাকা’র বিজ্ঞ সাইবার ট্রাইব্যুনাল আদালতে মিথ্যা অভিযোগ এনে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২০১৮ এর ২৩/২৫/২৬/২৯/৩৫ ধারায় ২৮৬/২০২২ নম্বর মামলা দখিল করার প্রতিবাদ জানিয়েছেন তিনি।
শুক্রবার (২৬ আগস্ট) বিকালে তার অফিসে সাংবাদিকদের উদ্দেশ্য করে মুহাম্মদ কাইসার হামিদ বলেন, একটি সংবাদ প্রকাশের জের ধরে উপজেলার বড়খারচর গ্রামের মৃত আব্দুর রাশিদের কন্যা ফারজানা আক্তারের সাথে তার বিরোধ সৃষ্টি হলে গত ২০২০ সালের ১৪ নভেম্বর কুলিয়ারচর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন কাইসার হামিদ। সাধারণ ডায়েরি নং- ৬০৩। সাধারণ ডায়েরি করার পর থেকে ফারজানা আক্তার তার ব্যবহৃত বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে মুহাম্মদ কাইসার হামিদ এর মানহানি করার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন লিখা, ছবি ও নিউজ পোস্ট করে আসছে। উক্ত বিরোধের জের ধরে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে মুহাম্মদ কাইসার হামিদ-কে হয়রানি করার উদ্দেশ্যে ফারজানা আক্তার গত ২৪ জুলাই ঢাকা’র সাইবার ট্রাইব্যুনালে দাখিলকৃত ২৮৬/২০২২ নম্বর মামলায় মুহাম্মদ কাইসার হামিদ-কে ৩নম্বর আসামী করে।
বিজ্ঞ সাইবার ট্রাইব্যুনালে দাখিলকৃত মামলায় সাংবাদিক মুহাম্মদ কাইসার হামিদ এর বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন দাবী করে তিনি বলেন, মামলায় ফারজানা আক্তার উল্লেখ করেছে “কালো পাতা”, কলিজা পুড়ে ছাই”, ” কুলিয়ারচর বার্তা কুলিয়ারচর বার্তা”, ঘটনার পেছনে”, “Atik Ramdi Atik Ramdi”,” Nila Nila” নামক ফেসবুক আইডি গুলো সাংবাদিক মুহাম্মদ কাইসার হামিদ সহ অন্যান্য বিবাদীরা ব্যবহার করে ফারজানা আক্তারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অপপ্রচার করে তার মানহানি করে আসছে। সাংবাদিক মুহাম্মদ কাইসার হামিদ ফারজানা আক্তারের মানহানি করার উদ্দেশ্যে এসব ফসবুক আইডি থেকে  কোন লিখা, ছবি কিংবা ভিডিও পোস্ট করাতো দূরের কথা এসব ফেসবুক আইডি তিনি কোন দিনই ব্যবহার করেননি দাবী করে এ মামলায় তাকে আসামী করার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে এ মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়ার জন্য মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।