নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

সম্প্রতি তিস্তা প্রকল্পে বাংলাদেশকে ১০০ কোটি ডলার অর্থসহায়তার ঘোষণা দিয়েছে চীন।এই প্রকল্পের অাওতায় থাকবে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।শুষ্ক মৌসুমে নদীর পানিতে যেন ঘাটতি না পরে তার অত্যাধুনিক ব্যবস্থা নেয়া, নদী ভাঙনে যেনো জনজীবনে দুর্গতি না দেখা দেয় তার প্রতিরোধ ব্যবস্থা গ্রহণ করা, তিস্তা নদীর সাথে যোগ রেখে যে জনজীবন তৈরি হয়েছে তা উন্নত করা।নদী শাসনে অভিজ্ঞতা সম্পন্ন চীন বাংলাদেশের সর্ব বৃহৎ বাণিজ্য সহযোগী।তবে, নদী বিষয়ক সহযোগিতায় এই প্রথম এগিয়ে এলো দেশটি।এটিকে ইতিবাচক ভাবেই নিচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা।
বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সবচেয়ে বিতর্কিত বিষয় হলো তিস্তা পানিবণ্টন চুক্তি।পশ্চিমবঙ্গের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে অাসামে ব্রম্মপুত্র এবং বাংলাদেশের যমুনা নদীর সাথে মিলিত হয়েছে নদীটি।তা সত্ত্বেও, এই চুক্তি কোনো অাশার অালো দেখেনি।বর্তমানে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে নয়াদিল্লির সাথে বেইজিংয়ের সম্পর্ক তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। ফলে, বিষয়টি অনেক ভাবিয়ে তুলছে নয়াদিল্লিকে।

এসবের ভিতর দিয়েই ঢাকা ও বেইজিংয়ের পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা প্রকল্পটি বাস্তবায়নে কাজ অালোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন।।