ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি- নওগাঁর ধামইরহাটে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে বাড়ীর স্থাপনা ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। এতে উদ্বেগ উৎকণ্ঠা  প্রকাশ করেছে এলাকার জনসাধারণ । ওই  ইউপি সদস্য পদের অপব্যবহারের অভিযোগ তুলেছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা। ঘটনাটি উপজেলার আলমপুর ইউনিয়নে। ভুক্তভোগী ধামইরহাট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।

ধামইরহাট থানায় অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার  ভেড়ম (সোনাদিঘী) গ্রামের মৃত নবিবর রহমানের ছেলে আবুল কালাম জানান, তার নিজস্ব জোতভুক্ত জমিতে ১২ ফিট রাস্তা ছেড়ে দিয়ে বাড়ীর নির্মাণ করছেন। ২০ মার্চ দুপুর সাড়ে ১২ টায় ইউপি সদস্য মো. মুসা তার লোকজন নিয়ে আবু কালামের বাড়ীতে অতর্কিত ভাবে হামলা চালিয়ে দরজা-জানালার ছানসেট ভাংচুরসহ নির্মান শ্রমিকদেরও মারপিটের খবর পাওয়া গেছে। এতে গৃহকর্তার প্রায় ৫০ হাজার টাকার ক্ষতি হয়। শনিবার দুপুরে গৃহকর্তা আবু কালাম ১০ জনের বিরুদ্ধে ধামইরহাট থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। এ বিষয়ে আলমপুর ইউপির ৫ নম্বর ওয়ার্ডের অভিযুক্ত মুসা মেম্বার ঘটনার সাথে সম্পৃক্তের কথা স্বীকার করে বলেন, ‘গ্রামবাসীর নিষেধ থাকা সত্বেও আবু কালাম জোর করে ছামসেট নির্মান করছিল, তবে ভাংচুরের নির্দেশনায় দেয়াটা ঠিক হয়নি বলেও অনুতপ্ত ইউপি সদস্য মুসা।’
থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ধামইরহাট থানার সহকারী উপ পরিদর্শক আমিনুর রহমান বলেন, ‘ভাংচুরের সত্যতা রয়েছে, তবে স্থানীয়ভাবে পুনরায় স্থাপনা নির্মানের পরিবেশ তৈরী করা হয়েছে।
ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুর রহমান বলেন, ‘সাধারণ জনগণ ভুল করতে পারে তাই বলে জনপ্রতিনিধিদের ভুল কাজ করবে এটা ঠিক হয়নি, বাড়ী ভাংচুরের বিষয়ে তিনিও দুঃখ প্রকাশ করেন।
ধামইরহাট থানার ওসি আবদুল মমিন জানান,‘বিষয়টি থানা পুলিশ ও ইউপি চেয়ারম্যান সহ স্থানীয়দের মাধ্যমে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।