ধামইরহাটের বাইপাস সড়কটি জনগনের কোন উপকারে আসেনা 

মাসুদ সরকার, ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর ধামইরহাটের বাইপাস সড়কটি জনগণের কোন উপকারে আসছে না। সড়কটি খুবই সরু এবং রাস্তার পার্শে শোল্ডার না থাকার কারণে হালকা ও ভারী যানবাহন ক্রসিং হয় না। যার কারণে কোন যানবাহন আর ঝুঁকি নিয়ে ওই রাস্তায় যায় না। প্রশস্ত করণের অভাবে যে উদ্দেশ্যে নিয়ে রাস্তাটি নির্মাণ করা হয়েছিল সেটি কার্যত অকার্যকর হয়ে পড়েছে। এলাকাবাসী দ্রুত রাস্তাটি প্রশস্তকরণের দাবী জানিয়েছেন।

জানা গেছে,প্রায় এক যুগ আগে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ (এলজিইডি) ধামইরহাট ইউপি-ভেড়ম বাজার ভায়া বিহারীনগরহাট সড়কটি নির্মাণ করে। এ সড়কটি ধামইরহাট বাইপাস সড়ক হিসেবে পরিচিত। সড়কটি ধামইরহাট-জয়পুরহাট সড়কের পিড়লডাঙ্গা মোড় থেকে শুরু হয়ে ঘুকসি খাড়ীর উপর তিনটি সেতু অতিক্রম করে ধামইরহাট-নওগঁা সড়কের বিহারীনগর ব্রীজের নিকট গিয়ে মিলিত হয়েছে। রাস্তাটি সাড়ে ৪ কিলোমিটার দৈঘর্য এবং প্রশস্ত  ১০ফুট। সড়কে তিনটি সেতু সরু রয়েছে। এ সেতুগুলোতে বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়ীগুলো অতিক্রম করতে পারে না। তাছাড়া রাস্তার পার্শে কোন শোল্ডার নেই। রাস্তার পার্শের জমিতে সড়কটি প্রায় ১০-১২ ফুট উঁচু। কোনক্রমে কোন যানবাহন অপর গাড়ীকে সাইড দিতে গিয়ে পড়ে গেলে অনেক নিচুতে যেতে হয়। সড়কটি নির্মাণের পর এটি ধামইরহাট বাইপাস সড়ক হিসেবে পরিচিত। চাপাইনবাবগঞ্জ,রাজশাহী,নওগঁার সাপাহার,পোরশা,নিয়ামতপুর,মহাদেবপুর,পত্নীতলাসহ আশপাশের অনেক উপজেলার মানুষ ও পণ্যবাহী গাড়ী এ রাস্তা দিয়ে দেশের উত্তরাঞ্চল বিশেষ করে রংপুর,দিনাজপুর,ঠাকুরগাঁও,পঞ্চগড়সহ বিভিন্ন স্থানে যাতায়াত করে। এ সড়ক দিয়ে হিলি স্থুল বন্দরর মালামাল ট্রাক যোগে দেশের বিভিন্নস্থানে সরবরাহ করা হয়। তাছাড়া এ সড়ক দিয়ে চলাচল করলে প্রায় ৩-৪ কিলোমিটার পথ কম হয়। বর্তমানে রাস্তাটি সরু হওয়ার এবং যানবাহন ক্রসিংয়ের জায়গা না থাকায় কেউ আর ওই পথে যায়না। সকল গাড়ীগুলো বর্তমানে ধামইরহাট উপজেলা সদরের প্রধান সড়ক দিয়ে যাতায়াত করছে। এতে রাস্তায় দির্ঘ যানজট লেগে থাকে। যার কারণে শররের উপর চাপ পড়ছে। অথচ বর্তমানে বাইপাস সড়কটির দুই পার্শে অন্তত তিন ফুট করে প্রশস্ত করলে এ সমস্যা দ্রুত সমাধান হয়ে যেতো। বর্তমানে সড়কটি গরু,ছাগল,হাঁস মুরগি চলাচল করে। চাপাইনবাবগঞ্জের কানসাট গামী ট্রাকের চালক মো.আব্দুল মজিদ বলেন,বাইপাস সড়ক দিয়ে যেতে পারলে সময় কম লাগতো। তাছাড়া ধামইরহাট উপজেলা সদরে যানজটে পড়তে হতো না। কিন্তু বাইপাস সড়কটি এতো সরু যে কোনক্রমে অপর দিক থেকে এমনকি হালকা যানবাহন আসলেও তার সাইড দেয়ার মতো জায়গা নেই। এতে গাড়ী নিয়ে সামনে ও পিছনে কোন দিকে আর যাওয়ার রাস্তা থাকে না।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ ধামইরহাট,নওগঁার উপজেলা প্রকৌশলী মো.আলী হোসেন বলেন,সড়কটির গুরুত্ব বিবেচনা করে প্রশস্তকরণের জন্য একটি প্রস্তাব উর্দ্ধতন কতর্ৃপক্ষের নিকট পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু সেটি কতর্ৃপক্ষের সুনজরে আসেনি। উপজেলা সদরের একমাত্র রাস্তাটি তেমন প্রশস্ত নয় তার উপরন্ত আন্তঃ জেলার যানবাহন চলাচল করায় প্রায় সারাদিনই যানজট লেগে থাকে। এতে এলাকাবাসীকে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। ধামইরহাট উপজেলাকে যানজটমুক্ত করতে বাইপাস সড়কটি প্রশস্ত করা জরুরী হয়ে দাঁড়িয়েছে।