সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, মাদকমুক্তের অঙ্গীকার চেয়ারম্যান প্রার্থী জালাল আহম্মেদের।

সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, মাদকমুক্তের অঙ্গীকার চেয়ারম্যান প্রার্থী জালাল আহম্মেদের।

নাটোর

লালপুর ( নাটোর) প্রতিনিধি

আসন্ন ৮ নং দুড়দুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী জালাল আহম্মেদ বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক অধিক সমাদৃত তিনি। নাটোরের লালপুর উপজেলার দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের এক সাধারণ পরিবার থেকে উঠে আসা তৃণমূলের গ্রহণযোগ্য ও নির্ভরযোগ্য এ নেতা শৈশব থেকে আজ অবধি বহু চড়াই উৎরাই পেরিয়ে আওয়ামী আদর্শকে বুকে লালন করে দলীয় আদর্শকে সমুন্নত রেখে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে লালপুর উপজেলার ৮নং দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জালাল আহম্মেদ দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন।

পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে এলাকাবাসীর দাবি পূরণে নৌকার মাঝি হতে চান সাবেক দুড়দুড়িয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জালাল আহম্মেদ । আসছে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নৌকার মাঝি হিসেবে আওয়ামী লীগ নেতা জালাল আহম্মেদকে চায় ৮ নং দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের জনগণ। নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে এলাকাবাসীর মাঝে ঐক্য আরও সুদৃঢ় হচ্ছে বলে জানা গেছে। জালাল উদ্দীন কে চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত করার জন্য চলছে ভোটারদের মাঝে চায়ের আড্ডায় ব্যাপক গুন্জন। ওই ইউনিয়নের সব শ্রেণীপেশার মানুষ একতাবদ্ধ হয়ে চালিয়ে যাচ্ছে নানা আলোচনা। এ ছাড়া স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মীরাও জালাল আহম্মেদের পক্ষে মাঠে কাজ করছে।

বঙ্গবন্ধুর এই সৈনিক জানান, দল থেকে যদি আমাকে মনোনয়ন দেয় তবে আমি নৌকা প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে জয় লাভ করে দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নকে বাংলাদেশের মধ্যে একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। রাজনীতির জন্য নিজের সুখ,শান্তি,আশা,আকাঙ্ক্ষা সব বিসর্জন দিয়ে আজও আমার প্রিয় সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একজন কর্মী হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া প্রত্যেকটি আদেশ-নির্দেশ যথাযথ মর্যাদায় পালন করে যাচ্ছি। আমার দৃঢ় বিশ্বাস দলীয় হাইকমান্ড আমাকে অবশ্যই মূল্যায়ন করবে। আমি আপনাদের দোয়া ও সমর্থন প্রত্যাশী।

সাবেক ছাত্রনেতা ও আওয়ামী লীগ নেতা জালাল আহম্মেদ বলেন, এবার ৮ নং দুড়দুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমি প্রার্থী হওয়ায় এলাকাবাসীর মাঝে ব্যাপক উদ্দীপনা বিরাজ করছে। আমি জনগনের সেবক হতে চাই, আমাকে চেয়ারম্যান হিসেবে মনোনয়ন দিতে এবং নির্বাচিত করতে এলাকার তরুণ প্রজন্ম, যুবসমাজ ও প্রবীণ ব্যক্তিরা মাঠে কাজ করছে। ৮ নং দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের সাধারণ জনগনের দাবি একটাই”পরিবর্তন”।

তাঁর জনসমর্থন অন্যসব প্রার্থীর তুলনায় বেশি দাবি করে তিনি বলেন, দল মনোনয়ন দিয়ে আমাকে চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার প্রত্যাশা পূরণের সুযোগ করে দেবে আশা করি।

তিনি জানান, আমি মানুষের যে ভালোবাসা ও সমর্থন পেয়েছি তা অভূতপূর্ব। দলের নেতা কর্মীরা তাকে উৎসাহ দিচ্ছেন। তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করার সুযোগ পেলে বিপুল ভোটে ভোটাররা তাকে বিজয়ী করবেন বলে বিশ্বাস করেন।

নির্বাচিত হলে ৮ নং দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নকে আধুনিক ও ডিজিটাল ইউনিয়নে পরিণত করা সহ দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নকে উন্নয়নের রোল-মডেল হিসেবে পরিচিত করা এবং সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, মাদকমুক্ত ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার করেন তিনি।
Attachments area

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.